Biz Tech 24 :: বিজ টেক ২৪

চাঁদে যাওয়ার মহাকাশযান তৈরির কাজ পেলো স্পেসএক্স

বিজটেক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৪:৪৫, ১৮ এপ্রিল ২০২১

চাঁদে যাওয়ার মহাকাশযান তৈরির কাজ পেলো স্পেসএক্স

মহাকাশ সংস্থা স্পেসএক্সকে চাঁদে যাওয়ার মহাকাশযান তৈরির কাজ দিল মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। ২০২৪ সালের শুরুর দিকে মহাকাশচারীদের চাঁদে পাঠানোর জন্য মহাকাশযান তৈরির দায়িত্ব দেয়া হয়েছে এলন মাস্কের কোম্পানিকে। ২.৯ বিলিয়ন ডলারের এই চুক্তি পেয়েছে স্পেসএক্স। জেফ বেজোসের ‘ব্লু অরিজিন’কে হারিয়ে এ দায়িত্ব পায় প্রতিষ্ঠানটি।

প্রাথমিক পর্যায়ে তিনটি প্রতিষ্ঠানকে নির্বাচিত করেছিল নাসা। শেষে পুরো চুক্তিটাই স্পেসএক্সকে দিয়ে দিয়েছে সংস্থাটি। এর আগে ধারণা করা হয়েছিল, নাসা দুটি প্রতিষ্ঠানকে এ চুক্তি দেবে।

নাসার একাধিক ঠিকাদারকে চুক্তি দেওয়ার নজির রয়েছে। সাধারণত প্রতিযোগিতার প্রচারণার স্বার্থে এবং কোনো কারণে চুক্তি বিজেতা প্রস্তাবনা বাস্তবায়ন না করতে পারলে যাতে হাতে অন্য পথ খোলা থাকে, সেজন্য এ কাজ করতো মার্কিন এ মহাকাশ গবেষণা সংস্থা।

স্পেসএক্স আর্তেমিস মিশনের জন্য পুনর্ব্যবহারযোগ্য ‘স্টারশিপ’ মহাকাশযান বানিয়ে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে। নাসারও যে প্রস্তাবটি পছন্দ হয়েছে তা চুক্তি দিয়ে দেওয়া দেখেই অনুমেয়। তবে, স্টারশিপ নিয়ে সমস্যার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে স্পেসএক্স।

এখন পর্যন্ত স্পেসএক্সের সব নমুনা হয় ক্র্যাশ করেছে না-হয় বিস্ফোরিত হয়েছে। কিন্তু নাসা সে ঘটনাগুলো আমলে নিচ্ছে কি না তা পরিষ্কার নয়। তারা শুধু জানিয়েছে, স্পেসএক্সের মহাকাশযানের পুনর্ব্যবহারযোগ্যতার বিষয়টি ঠিকাদার নির্বাচনের সময় ভূমিকা রেখেছে।

চুক্তিটি স্পেসএক্সের জন্য বড় মাপের একটি অর্জন। এরই মধ্যে নাসার সঙ্গে মিলে আন্তর্জাতিক মহাকাশ কেন্দ্রে নভোচারী আনা-নেওয়ার কাজ করছে সংস্থাটি। এপ্রিলের ২২ তারিখেই এ প্রকল্পের পরবর্তী মিশন সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে।

মানুষ চাঁদে শেষবার গিয়েছিল ১৯৭২ সালে। যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাপোলো কর্মসূচী বন্ধ হওয়ার মধ্য দিয়ে সে অধ্যায়ের ইতি ঘটে। ফলে ১৯৭২ সালের পর প্রথম চাঁদে মানুষ নিয়ে যাওয়া প্রতিষ্ঠান হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে গেল স্পেসএক্স।