ঢাকা     ২২ এপ্রিল ২০২৪ ||  ৯ বৈশাখ ১৪৩১

Biz Tech 24 :: বিজ টেক ২৪

আগ্রহ বাড়ছে সর্বজনীন পেনশন স্কিমে

বিজটেক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২১:৩৩, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

আগ্রহ বাড়ছে সর্বজনীন পেনশন স্কিমে

প্রবাস, প্রগতি, সুরক্ষা এবং সমতা স্কিম নিয়ে সর্বজনীন পেনশন ব্যবস্থা চালু করেছে সরকার। চালুর প্রথম দিন থেকেই সাধারণ মানুষের ব্যাপক সাড়া পড়ে। মাত্র এক মাসে কিস্তির টাকা জমা দিয়ে বিভিন্ন স্কিমে নিবন্ধন নিয়েছেন ১২ হাজার ৯৭০ জন।

অর্থ বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, পৃথিবীর অনেক দেশেই জাতীয় পেনশন ব্যবস্থা চালু আছে। আমাদের এটা চালু করতে একটু সময় লেগেছে। সর্বজনীন পেনশন খাতে জমা হওয়া অর্থ লাভজনক খাতে বিনিয়োগ হবে। তা থেকে প্রাপ্ত মুনাফাই জমা হবে এই স্কিমের হিসাবে। পেনশনের জন্য নির্ধারিত চাঁদা বিনিয়োগ হিসেবে গণ্য করে কর রেয়াত পাওয়ার যোগ্য হবেন এবং মাসিক পেনশন বাবদ প্রাপ্ত অর্থ আয়কর মুক্ত থাকবে। এর ফলে সাধারণ মানুষ সর্বজনীন পেনশনে আগ্রহী হচ্ছেন।

জাতীয় পেনশন কর্তৃপক্ষের সদস্য ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব গোলাম মোস্তফা বলেন, এ ধরণের একটি প্রোগ্রামের জন্য এক মাস বেশি সময় না। যারা যুক্ত হয়েছেন তারা স্বতস্পূর্ত তাগিদে যুক্ত হয়েছেন। এ বিষয়ে আরও প্রচারণা দরকার আছে। আর একটি বিষয় হচ্ছে, মানুষ স্কিম করার আগে তার অর্থনৈতিক সক্ষমতাও হিসাব করছে। মানুষকে সময় দিতে হবে। আমরা আশা করছি, ভবিষ্যতে এটা বাড়বে।

তিনি আরো বলেন, পেনশন স্কিম গ্রহণকারীকে এখনও যেমন কোথাও যেতে হয় না, ভবিষ্যতেও যেতে হবে না। আবেদনে তিনি একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নাম্বার দিয়ে দিচ্ছেন। তিনি যখন পেনশন পাবেন, তখন ইএফটি’র মাধ্যমে তার প্রাপ্য টাকা ব্যাংক অ্যাকাউন্টে যাবে। কোনো মানুষের সান্নিধ্যে যেহেতু আসা লাগছে না, তাই হয়রানির কোনো সুযোগ নেই। যখন স্কিম পূর্ণতা লাভ করবে, তখন অটো সিস্টেমে পেনশনের টাকা তার অ্যাকাউন্টে চলে যাবে।

গত ১৭ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সার্বজনীন পেনশন কর্মসূচি উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পর জাতীয় পেনশন কর্তৃপক্ষের ওয়েবসাইট- www.upension.gov.bd চালু করা হয়েছে এবং চারটি স্কিমে অংশগ্রহণের জন্য অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম ও মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস, ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড ও ব্যাংকে টাকা দেওয়া শুরু হয়েছে। সিস্টেম চালু হওয়ার পর থেকে দেশে এবং প্রবাসী বাংলাদেশিদের কাছ থেকে ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে।