Biz Tech 24 :: বিজ টেক ২৪

৬৪ মেগাপিক্সেলের ‘মটো জি৯ প্লাস’ বিক্রির ঘোষণা মোটোরোলার

বিজটেক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ১৭:৫৯, ৯ ডিসেম্বর ২০২০

আপডেট: ১১:১৭, ১০ ডিসেম্বর ২০২০

৬৪ মেগাপিক্সেলের ‘মটো জি৯ প্লাস’ বিক্রির ঘোষণা মোটোরোলার

দেশের বাজারে দুটি স্মার্টফোন উন্মোচন করেছে মোবাইলফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মোটোরোলা। একই সঙ্গে ‘মটো জি৯ প্লাস’ বিক্রির ঘোষণাও দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। উপমহাদেশের মধ্যে বাংলাদেশেই প্রথম মটো জি৯ প্লাস উদ্বোধন করা হলো।

বুধবার রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে মটো জি৯ প্লাস স্মার্টফোনটির উদ্বোধন এবং দারাজের সাথে অংশীদারিত্ব ঘোষণা করে মটোরোলা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মটোরোলার ন্যাশনাল পার্টনার সেলেক্সট্রা লিমিটেডের ডিরেক্টর প্যানেলের সদস্য ইউনুস আল মামুন, মাহফুজুর রহমান ও চৌধুরী ফাহরিয়ার (সিওও) এবং দারাজের ঊর্ধতন কর্মকর্তা নাবিল নেওয়াজ, শাফিন ইনজাম ও সাদনান শিহাব।

মটো জি৯ প্লাস: ফোনটিতে ৬৪ মেগাপিক্সেল কোয়াড ক্যামেরা, ৬ জিবি র্যাম ও ১২৮ জিবি রম’র সাথে সর্বাধুনিক ও আল্ট্রা-ফাস্ট স্ন্যাপড্রাগন ৭৩০জি প্রসেসর, ৩০ ওয়াটের টার্বো পাওয়ার চার্জিং সুবিধাসহ ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে।

স্মার্টফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ৬.৮ ইঞ্চি এইচডিআর১০ ডিসপ্লে। দারাজের আসন্ন ফ্ল্যাগশিপ ১২.১২ ক্যাম্পেইন উপলক্ষে স্মার্টফোনটি পাওয়া যাবে ২৫ হাজার ৯৯৯ টাকায়। ফোনটির অরিজিনাল মূল্য ২৭ হাজার ৯৯৯ টাকা।

মটো জি৯ প্লে: ফোনটিতে ৪৮ মেগাপিক্সেল ট্রিপল ক্যামেরা, ৪ জিবি র্যাম ও ১২৮ জিবি রম, ২০ ওয়াটের টার্বো পাওয়ার চার্জিং সুবিধাসহ ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি এবং মটোরোলার সিগনেচার নিয়ার-স্টক অ্যানড্রয়েড এক্সপেরিয়েন্স থাকবে। দারাজে ফোনটি ১৭ হাজার ৯৯৯ টাকায় পাওয়া গেলেও আসন্ন ১২.১২ ক্যাম্পেইন চলাকালে ফোনটি পাওয়া যাবে ১৬ হাজার ৯৯৯ টাকায়। স্মার্টফোনপ্রেমীরা যদি দারাজের প্রি-পেমেন্ট আপশনটি ব্যবহার করেন তাহলে ইএমআই সুবিধা ও আরও বেশি ডিসকাউন্টের জন্য কুপন পাবেন।

মটো জি৮ পাওয়ার লাইট: ফোনটিতে ১৬ মেগাপিক্সেল ট্রিপল ক্যামেরা, ৪ জিবি র্যাম ও ৬৪ জিবি রম, ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি এবং মটোরোলার সিগনেচার নিয়ার-স্টক অ্যানড্রয়েড এক্সপেরিয়েন্স থাকবে। দারাজে ফোনটি ১৪ হাজার ৯৯৯ টাকায় পাওয়া গেলেও ১২.১২ ক্যাম্পেইন চলাকালে ফোনটি পাওয়া যাবে ১৩ হাজার ৪৯৯ টাকায়।

অনুষ্ঠানে মটোরোলার ন্যাশনাল পার্টনার সেলেক্সট্রা লিমিটেডের চেয়ারম্যান মাহামুদ হোসেন বলেন, আমরা বাংলাদেশে মটোরোলার ম্যানুফ্যাকচারিং প্লান্ট চালু করা যায় কিনা সেটা বিবেচনা করতে চাই, যা শুধু ব্র্যান্ডটাকে প্রতিযোগিতায় এগিয়ে থাকতেই সহায়তা করবে না বরং দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে সহায়তা করবে।