ঢাকা     ২৯ জানুয়ারি ২০২৩ ||  ১৬ মাঘ ১৪২৯

Biz Tech 24 :: বিজ টেক ২৪

এই মুহূর্তে বাজারের সেরা স্মার্টফোনগুলি

বিজটেক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১:৩৪, ১৫ জানুয়ারি ২০২৩

আপডেট: ২২:২৫, ১৬ জানুয়ারি ২০২৩

এই মুহূর্তে বাজারের সেরা স্মার্টফোনগুলি

‘কথায় আছে জিনিশ যেটা ভালো তার দাম একটু বেশিই হয়’। প্রতিযোগিতার বাজারে প্রতি মুহুর্তে আশ্চর্যজনক স্মার্টফোন বাজারে ছাড়ছে ফোন কোম্পানিগুলো। নীচে হাইলাইট করা ফোনগুলি চমৎকার দৈনন্দিন পারফরম্যান্স এবং দুর্দান্ত ক্যামেরা সরবরাহ করে এবং অদূর ভবিষ্যতে ভালভাবে চলতে থাকবে। এগুলি দামী হতে পারে, তবে আপনি যা দিতে চান তার সবই পাবেন এই স্মার্টফোনগুলিতে।

ফোনগুলি সমস্ত দিক থেকে নিখুঁত, অর্থাৎ এখানে আমরা বিশ্বের সেরা ফোনগুলির তালিকা দেখতে যাচ্ছি। উল্লিখিত ফোনগুলি ডিসপ্লে, পারফরম্যান্স, ফটোগ্রাফি এবং ব্যাটারি সহ যেকোনো দিক থেকে অন্যান্য ফোনের চেয়ে অনেক এগিয়ে থাকবে। চলুন জেনে নিই বিশ্বের সেরা স্মার্টফোনগুলো সম্পর্কে।

1. Apple iPhone 14 Pro এবং Pro Max
2. Google Pixel 7 Pro
3. Apple iPhone 13
4. Samsung Galaxy S22 Ultra
5. Apple iPhone 13 Mini
6. Google Pixel 6A
7. Samsung Galaxy Z Flip 4
8. Samsung Galaxy Z Fold 4
9. OnePlus 10T


আইফোন ১৪ প্রো ও ১৪ প্রো ম্যাক্স
আইফোন ১৪ সিরিজের মধ্যে সবচেয়ে আকর্ষণীয় হলো ১৪ প্রো ও ১৪ প্রো ম্যাক্স। এই দুই ফোনেই পিল শেপড নচ ডিজ়াইন দেয়া হয়েছে, অ্যাপল একে ‘ডায়নামিক আইল্যান্ড’ বলছে। যদিও ফোন দুটির দাম একটু বেশি তারপরও দুই ফোনে রয়েছে অ্যাপলের লেটেস্ট A16 Bionic চিপ, স্যাটেলাইট কানেক্টিভিটি সাপোর্ট। সব মিলিয়ে আগের প্রো মডেলগুলির তুলনায় আইফোন ১৪ প্রো মডেলগুলি অনেক আপগ্রেড পেয়েছে।

আইফোন ১৪ প্রো মডেলগুলিতে হাই-এন্ড সেন্সর সহযোগে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সিস্টেম রয়েছে। ৬.১ ইঞ্চির লিক্যুইড রেটিনা ডিসপ্লে দেয়া হয়েছে। অন্য দিকে iPhone 14 Pro Max-এ রয়েছে বেশ কিছুটা বড় 6.7 ইঞ্চির ডিসপ্লে, যার ব্রাইটনেস ১৬০০ নিটস, ডলবি ভিসন সাপোর্ট এবং HDR10 সাপোর্ট করে।

এই সিরিজ়ের প্রো মডেলটিতে A16 Bionic চিপসেট দেওয়া হয়েছে, যা 4nm ম্যানুফ্যাকচারিং প্রসেস ব্যবহার করে এবং ৬ কোর CPU দ্বারা নির্মিত। ফোন দুটি ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপে প্রাইমারি সেন্সর ৪৮ মেগাপিক্সেল। এই প্রথম আইফোনে এমন বিরাট ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। সেকেন্ডারি সেন্সর হিসেবে ফোন দুটিতে রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেল আলট্রাওয়াইড অ্যাঙ্গেল ক্যামেরা এবং ১২ মেগাপিক্সেল টেলিফটো লেন্স, যা জুম লেন্স হিসেবে কাজ করবে। সেলফি ও ভিডিয়ো কলিংয়ের জন্য দুটি ফোনেই ১২ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ফেসিং সেন্সর দেয়া হয়েছে।

অ্যাপলের মতে, আইফোন ১৪ প্রো মডেলগুলিতে একবার চার্জ দিলেই এক দিনের ব্যাটারি ব্যাকআপ পাওয়া যায়। সংস্থাটি আরও দাবি করছে, পূর্ববর্তী আইফোনগুলির তুলনায় এই নতুন প্রো মডেলগুলির ব্যাটারি পারফরম্যান্স অনেক ভাল এবং পরিণত।

গুগল পিক্সেল ৭ প্রো
গুগল পিক্সেল ৭ প্রো স্মার্টফোনটিতে একটি ৬.৭-ইঞ্চি কোয়াড এইচডি প্লাস এমোলেড ডিসপ্লে রয়েছে, যা ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট সাপোর্ট করে। ফাস্ট পারফরম্যান্সের জন্য এতে ব্যবহার করা হয়েছে গুগল টেন্সর জি২ প্রসেসর। ফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ১৩ অপারেটিং সিস্টেমে রান করে। স্টোরেজ হিসাবে এতে ১২ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি পর্যন্ত রম রয়েছে।

ফটো ও ভিডিওগ্রাফির জন্য স্মার্টফোনটিতে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে। এই ক্যামেরাগুলি ৫০ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল সেন্সর, ৪৮ মেগাপিক্সেল টেলিফটো লেন্স ও ১২ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড অ্যাঙ্গেল শুটার। এই রিয়ার সেন্সরগুলি ৩০এক্স হাইব্রিড জুম, ম্যাক্রো ফোকাস, ওআইএস, রিয়েল টোন, মোশান ব্লার প্রভৃতি ক্যামেরা ফিচার সাপোর্ট করে। আবার সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য এতে পাওয়া যাবে ১০.৮ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা।

পাওয়ার ব্যাকআপের ক্ষেত্রে Google Pixel 7 Pro স্মার্টফোনে ৫,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি রয়েছে, যা ওয়্যারলেস চার্জিং সহ ৩০ ওয়াট ওয়্যাড ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে। এছাড়া এটি টাইটান এম২ চিপ সহযোগে এসেছে। নিরাপত্তার জন্য এতে আন্ডার ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর রয়েছে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২২ আলট্রা
স্যামসাংয়ের এই স্মার্টফোনটি অ্যানড্রয়েড ১২ এবং One UI 4.1 সাপোর্ট। ৬.৮ ইঞ্চির Edge QHD+ ডায়নামিক অ্যামোলেড ২এক্স ডিসপ্লে রয়েছে। রিফ্রেশ রেট ১ থেকে ১২০ হার্টজ পর্যন্ত। স্মার্টফোনটিতে রয়েছে স্ন্যাপড্রাগন ৮ জেন ১ প্রসেসর। তার সঙ্গে যুক্ত রয়েছে ১২ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম।

স্যামসাং গ্যালাক্সি এস২২ আলট্রাতে কোয়াড রেয়ার ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে। সেখানে একটি ১০৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি সেনসর রয়েছে। আর রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেলের আলট্রা ওয়াইড শুটার এবং ১০ মেগাপিক্সেলের টেলিফটো শুটার (৩এক্স অপটিকাল জুম), আরও একটি ১০ মেগাপিক্সেলের টেলিফটো শুটার (১০এক্স অপটিকাল জুম)। সেলফির জন্য রয়েছে ৪০ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। এই ফোনের অনবোর্ড স্টোরেজের পরিমাণ সর্বোচ্চ ৫১২ জিবি।

স্মার্টফোনটিতে রয়েছে ৫০০০ এমএএইচের ব্যাটারি, ৪৫ ওয়ায়টের ওয়্যারড এবং ১৫ ওয়াটের ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট। সেই সঙ্গে থাকছে ওয়্যারলেস পাওয়ার শেয়ার ফিচার।