ঢাকা     ২১ মে ২০২৪ ||  ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

Biz Tech 24 :: বিজ টেক ২৪

যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক নিষিদ্ধে বিল পাস

বিজটেক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৪:১৩, ২৪ এপ্রিল ২০২৪

যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক নিষিদ্ধে বিল পাস

জনপ্রিয় ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম টিকটকের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিতে একটি বিলে অনুমোদন দিয়েছে মার্কিন সিনেট। এর আওতায় আগামী ছয় মাসের মধ্যে টিকটকের চীনা মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান বাইটড্যান্সকে যুক্তরাষ্ট্রে তাদের শেয়ার বিক্রি করে দিতে হবে। অন্যথায় যুক্তরাষ্ট্রে এই অ্যাপটি ব্লক করে দেওয়া হবে।

বিলটি এখন স্বাক্ষরের জন্য প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে যাবে এবং তার স্বাক্ষরের পর এটি আইনে পরিণত হবে। এর ফলে বাধ্যতামূলকভাবে টিকটক বিক্রির বিষয়ে চীনা কর্তৃপক্ষের অনুমোদন চাইতে হবে বাইটড্যান্সকে। কিন্তু বেইজিং ইতোমধ্যেই শক্তভাবে এর বিরোধিতা করেছে।

বিশ্বজুড়ে টিকটকের কোটি কোটি ব্যবহারকারী আছে। তবে এখন এর সঙ্গে চীনা সরকারের যোগসূত্র এবং এর ব্যবহারকারীদের তথ্য উপাত্তের নিরাপত্তা নিয়ে ক্রমশ প্রশ্ন উঠছে।

এখন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস ও সিনেট উভয় ফোরামেই টিকটকের বিষয়ে বিল পাস হলো। প্রেসিডেন্ট বাইডেন আগেই এটি স্বাক্ষর দিয়ে আইনে পরিণত করার কথা বলেছেন।

গত ২১ এপ্রিল কংগ্রেস ৯৫ বিলিয়ন ডলারের বৈদেশিক সহায়তা বিল পাস করেছিল যাতে টিকটকের বাধ্যতামূলক বিক্রির বিষয়টিও আছে। তবে টিকটকের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের এমন উদ্যোগ এবারই নতুন নয়। সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও ২০২০ সালে হোয়াইট হাউজে থাকার সময় এই অ্যাপটি বন্ধ করতে চেয়েছিলেন।


প্রস্তাবিত আইনটির সমালোচনা করে টিকটক কর্তৃপক্ষ বলেছে, এটি যুক্তরাষ্ট্রে মত প্রকাশের স্বাধীনতার প্রতি একটি অসম্মান। এর প্রধান নির্বাহী সো জি চিউ সতর্ক করে দিয়ে বলেন, এ বিলটি ‘অন্য সামাজিক মাধ্যমগুলোকে অধিকতর শক্তিশালী করবে’ এবং অনেক মার্কিনির চাকরি হুমকির মুখে ফেলবে।

বিলটি আইনে পরিণত হলে অন্য দেশেও একই পদক্ষেপ নেওয়ার ক্ষেত্রে উৎসাহ তৈরি হতে পারে। ভারত ইতোমধ্যেই টিকটকে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। ২০২০ সালের জুনে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকরের আগে দেশটি এই অ্যাপের একটি বড় বাজার ছিল।

এছাড়া ইরান, নেপাল, আফগানিস্তান ও সোমালিয়াতেও টিকটক বন্ধ আছে। ২০২৩ সালে যুক্তরাজ্যের সরকারও সংসদে তাদের কর্মীদের ডিভাইসে টিকটক ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। ইউরোপিয়ান কমিশনও একই কাজ করেছে।